আজ বুধবার ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং ৮ ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ বসন্তকাল ১৪ জমাদিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম :
বন্দুকযুদ্ধে’ ছিনতাইকারী গুলিবিদ্ধ আজও বার্সেলোনা ড্র করেছে আজ দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী শুরুতেই তিন উইকেট হারাল বাংলাদেশ ঢাকায় অস্ট্রেয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ৩৩১ রানের টার্গেটে ব্যাট করছে বাংলাদেশ ২০ ফেব্রুয়ারি দিনটি কেমন যাবে ইতিহাস ঐতিহ্যে ভরপুর ঝিনাইদাহের বারোবাজার ইউসিবিএল ব্যাংকের ম্যানেজারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা রাজ্জাকের পদত্যাগকে স্বাগত জানালেন ড. কামাল ৩১ শিশুর দেহাবশেষ উদ্ধারের ঘটনায় দুই ডাক্তার বরখাস্ত মণিরামপুরে ভাইয়ের হাতে বোন খুন জেনে নিন, আনারস আর দুধ একসাথে খেলে কি হয় ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ১৬টি অঙ্গরাজ্যের মামলা সড়ক দুর্ঘটনায় ডিশ ব্যবসায়ী নিহত নদী আর গহীন অরণ্যের মাঝে ঘুরে আসুন সুন্দরবন চুয়াডাঙ্গায় সোলার লাইট স্থাপন কার্যক্রম উদ্বোধন পুলিশ হেফাজতে সালমান মুক্তাদির জিজ্ঞাসাবাদ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে বিজ্ঞানের ২০ শতাংশ অগ্রাধিকার নকলের সুযোগ না দেয়ায় শিক্ষিকাকে জুতাপেটা স্মার্ট কার্ড পেয়েছেন, জেনে নিন কি কি সুবিধা পাবেন চৌগাছায় আ.লীগ নেতা হত্যায় ১৭ জনের নামে মামলা মুক্তির অপেক্ষায় ‘বিউটি সার্কাস’: জয়া ও ফেরদৌস ১৫ মার্চ থেকে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু কাশিয়ানীতে কোচিং সেন্টারে অভিযান: পোড়ানো  হলো বেঞ্চ

বাংলাদেশের ৩২ শতাংশ শিশু বিপদের মুখে: ইউনিসেফ

বাংলাদেশে ৩২ শতাংশ বিপদের মুখে: ইউনিসেফ

ডেস্ক রিপোর্ট: বাংলাদেশের শিশুরা অনলাইনে উৎপীড়ন, হয়রানি এবং নানা ধরণের বিপদের হুমকির মুখে আছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘের শিশু ইউনিসেফ। শিশুদের অনলাইনে নিরাপদ রাখার যথেষ্ট ব্যবস্থা বাংলাদেশে নেই।

আজ মঙ্গলবার ঢাকায় প্রকাশ করা এক রপোর্টে ইউনিসেফ বাংলাদেশের শিশুদের অনলাইনের ব্যবহার সম্পর্কে একটি চিত্র তুলে ধরে।

ইউনিসেফ বিশ্বজুড়ে ১৬০টি দেশে একটি জরিপ চালিয়েছিল শিশুদের অনলাইন ব্যবহার সম্পর্কে একটা ধারণা পাওয়া যায়। এর অংশ হিসেবে বাংলাদেশেও ১ হাজার ২৮১ জন স্কুল বয়সী শিশুর ওপর জরিপ চালানো হয়।

ইউনিসেফ বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি এডুয়ার্ড বেগবেদারের ভাষায়, “ইন্টারনেট এখন শিশুদের জন্য এক দয়া-মায়াহীন জগতে পরিণত হয়েছে।

বাংলাদেশে ৩২ শতাংশ শিশু অনলাইনে ঝুঁকির মুখে আছে বলে এক রিপোর্টে জানান।

বাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১০ হতে ১৭ বছর বয়সী ৩২ শতাংশ শিশু অনলাইন সহিংসতা, অনলাইনে ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং ডিজিটাল উৎপীড়নের শিকার হওয়ার মতো বিপদের মুখে আছে।

আরো পড়ুন>>> আইসিটি মামলায় কোটা আন্দোলনের নেতা রাশেদ গ্রেফতার

ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের ১০ শতাংশ শিশু ধর্মীয় উস্কানিমূলক বিষয়বস্তুর মুখোমুখি হওয়ার অভিযোগ করেছে।

২৫ শতাংশ শিশু ১১ বছর বয়সের আগেই ডিজিটাল জগতে প্রবেশ করতে শুরু করে।

শিশুদের একটি বড় অংশ ইন্টারনেট ব্যবহার করে তাদের শুবার রুমে । এজন্য শিশুদের নজরদরি ছাড়াই তার ইন্টানেট ব্যবহার করছে। তারা তাদের বন্ধুদের সাথে চ্যাটিং এবং ভিডিও দেখে সময় পার করছে।

আবার ৭০ শতাংশ ছেলে ৪৪ শতাংশ মেয়ে অনলাইনে অপরিচিত মানুষের সাথে বন্ধুত্বের অনুরোধ গ্রহণ করে এভাবে নতুন বন্ধুর সৃষ্টি হয়। ইন্টারনেটের ব্যবহারের ফলে মানুষের গড় বয়স কমছে।

শিশু নিরাপত্তার জন্য বেশ কিছু আইন আছে। তাছাড়া বাংলাদেশে অনলাইন সাম্পর্কিত যত আইন আছে, ডিজিটাল সিকউরিটি আইন, আইসিটি আইন বা পর্ণোগ্রাফি আইন। প্রতিদিন অনলাইনে যুক্ত হচ্ছে লাখ লাখ শিশু তাদের নিরাপত্তার জস্য এই সব ব্যবস্থা করা হয়েছে।

স্বাআলো/এএম