শিরোনাম :
সু-প্রভাত বাসের চাপায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী নিহত গাইবান্ধার ৫ উপজেলায় ৩ আ’লীগের ২ জন বিদ্রোহী প্রার্থী জয়ী ঠাকুরগাঁওয়ে ৫ উপজেলায় বিজয়ী হলেন যারা দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক নিহত ১৯ মার্চ দিনিটি কেমন যাবে হাসপাতালে নেয়ার পথে আরো একজনের মৃত্যু ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেল চালক নিহত রংপুরে চেয়ারম্যান পদে পাঁচটিতে আ.লীগ, একটিতে জাপা প্রার্থী জয়ী মুল্যতালিকা না থাকায় চুয়াডাঙ্গায় ৪ দোকানে জরিমানা যশোরে দুই তরুণী গণধর্ষণের ঘটনায় ৬ জন রিমান্ডে তারাগঞ্জে সেই লিটন জয়ী যশোরে পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা রাঙ্গামাটিতে ৬ ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা ভোট গ্রহণ শেষে রংপুরে চলছে গণনা ডার্ক মোডে চলবে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার ১২ টাকার ইনজেকশন হাজার টাকায় বিক্রি নির্যাতিত বাঙালিদের স্বাধীনতার আকাঙ্খা সৃষ্টি করেছিলেন বঙ্গবন্ধু : শেখ হাসিনা পাকিস্তানি সেনার গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত রংপুরে নৌকার প্রার্থী মিলন আটক সাতক্ষীরায় ইকোনোমিক জোন প্রতিষ্ঠা করা হবে : সালমান এফ রহমান বিশিষ্ট লেখক মহসিন শস্ত্রপাণি স্মরণে যশোরে শোকসভা অনুষ্ঠিত নেদারল্যান্ডসের ট্রামে বন্দুকধারীর হামলা এবার ভিলেনের চরিত্রে মিরাক্কেলের ইশতিয়াক মোবারকগঞ্জ চিনিকলে ৩০ কোটি টাকার চিনি অবিক্রি গাইবান্ধায় ভোট গণনা চলছে, চেয়ারম্যান প্রার্থী আটক

প্রেসক্রিপশন ছাড়া বরিশালে ওষুধ বিক্রির ধুম, বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি

বরিশাল ব্যুরো : নগরীসহ জেলার প্রতিটি উপজেলায় গত কয়েকদিন ধরে ভোক্তা অধিকার, জেলা ও উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং ওষুধের ফার্মেসীতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। অভিযানে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি কিংবা মজুদ রাখায় একাধিক প্রতিষ্ঠানের মালিককে অর্থদন্ড করা হয়েছে।

তবে অভিযানের মধ্যেও থেমে নেই চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ওষুধ বিক্রি। নগরীর অধিকাংশ ওষুধের দোকানগুলোতে চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়াই দেদারসে বিক্রি হচ্ছে জীবন রক্ষাকারী ওষুধ। এ তালিকায় সর্দি-জ্বর থেকে শুরু করে ঘুম, নেশা, কিডনী সুরক্ষার ওষুধ ছাড়াও রয়েছে অতিরিক্ত মাত্রার অ্যান্টিবায়োটিক।

বিশেষজ্ঞদের মতে, চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ওষুধ বিক্রি ও সেবনে শুরু মৃত্যুঝুঁকিই বাড়াচ্ছে না, এ কারণে হত্যা, অপহরণ, আত্মহত্যা ও মাদক গ্রহণের মতো ঘটনা ঘটছে অহরহ। আর বিক্রেতারা বলছেন, চিকিৎসা ফি ও ব্যবস্থাপত্রে চিকিৎসক নির্দেশিত শারীরিক পরীক্ষার খরচ বাঁচাতেই ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ওষুধ ক্রয় করছেন অধিকাংশ রোগী।

সরেজমিনে নগরীর জেলখানা মোড়, নাজিরেরপুল, মরকখোলার পুল, নতুন বাজার, হাসপাতাল রোড, সদর রোড, শেবাচিম হাসপাতালের সামনে, রূপাতলী, নথুল্লাবাদসহ কয়েকটি স্থানের ফার্মেসিগুলোতে ঘুরে দেখা গেছে, প্রকাশ্যেই চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়াই ওষুধ বিক্রি হচ্ছে। আর এসব ওষুধের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে-নানা ধরনের ঘুমের ওষুধ। যা সেবন করে উঠতি বয়সের ছেলেরা নেশা করে থাকে। অথচ চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ওষুধের দোকানগুলোতে ওষুধ বিক্রিতে রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। কারণ চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ওষুধ সেবনে অ্যাজমা, ডায়াবেটিসসহ অন্যান্য মারাত্মক রোগের রোগীদের ক্ষেত্রে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ওষুধের দোকানের বিক্রেতারা জানান, মূলত চিকিৎসা ফি ও ব্যবস্থাপত্রে চিকিৎসক নির্দেশিত শারীরিক পরীক্ষার খরচ বাঁচাতেই ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ওষুধ ক্রয় করছেন অধিকাংশ রোগীরা। ফার্মেসিগুলোতে যৌণ উত্তেজক, উচ্চ রক্তচাপসহ জটিল সব রোগের ওষুধ বিক্রি হচ্ছে চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়াই। বিক্রেতারা অবশ্য ক্রেতাদের ওপর দোষ চাঁপিয়ে বলেন, বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই রোগী বা তার স্বজনরা ওষুধ ক্রয় করে থাকেন রোগের উপসর্গের বর্ণনা করে।

ওষুধের ফার্মেসিতে দেখা গেছে, চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া জ্বরের জন্য ব্যবহৃত কয়েকটি অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ বিক্রি হচ্ছে হরহামায়াশেই। এরমধ্যে রয়েছে সিফ্রোফ্লক্সাসিন ৫০০ এমজি ও অ্যামোস্কাসিলিন ৫০০ এমজি। এছাড়া ব্যথানাশক ওষুধ ডাইক্লোফেনাক ১০০ এমজি।

আরো পড়ুন>>>নানা উদ্যোগ থাকলেও বরিশালে ঠেকানো যাচ্ছে না বাল্যবিয়ে

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতে, ব্যবস্থাপত্র ছাড়া কোনো কিডনী রোগী যদি ডাইক্লোফেনাক ওষুধটি সেবন করেন, তবে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

নগরীর বিভিন্ন অলিগলিতে গজে উঠেছে অসংখ্য ফার্মেসী। যাদের নেই কোন অনুমোদন। অথচ এরা দেদারছে তাদের ইচ্ছেমতো করে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। সচেতন মহল মনে করছেন, ওষুধ প্রশাসনের কড়া নজরদারী ব্যতীত এসব অবৈধ ফার্মেসীগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। তাই তারা সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

স্বাআলো/ডিএম